সম্পাদকীয় : শব্দঘর নবম বর্ষশুরু সংখ্যা ২০২২

শিল্প-সাহিত্যের প্রতি অনুরাগ

নবম বর্ষশুরু সংখ্যা প্রকাশ করতে  পারছি―এটি আমাদের জন্য একটি বড়ো আনন্দ-সংবাদ।

নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা আর করোনাকালে অবিশ্বাস্য সংকট মোকাবিলা করে মাথা উঁচু করেই টিকে আছি, কথায় নয়―সাহিত্য-চাষের কাজেই লেগে আছি। শিল্প-সাহিত্যের প্রতি অনুরাগ থেকেই তা সম্ভব হচ্ছে বলে মনে হয়েছে আমাদের। এ অনুরাগের বন্ধনে আমাদের যাত্রাপথে সঙ্গে আছেন সাহিত্যসত্তায় উজ্জ্বল দেশ-বিদেশের কবি-সাহিত্যিক, প্রাবন্ধিক ও সাহিত্য-সমালোচক/ সাহিত্যবিশেষজ্ঞগণ। আরও আছেন প্রিয় পাঠক, আপনারাই।

আর্থিকভাবে কিংবা মেধা দিয়ে কেউ, কেউ পর্দার আড়ালে থেকে, নানা ধরনের সহযোগিতা করছেন। দেশ-বিদেশের বহু নিবেদিত গুণীজনও আছেন এ দলে। সাহিত্য-সংস্কৃতির ইতিহাস নিশ্চয়ই সবার কথা বলবে। শব্দঘর আপনাদের সবার।

শব্দঘর পঞ্চম জন্মদিন-সংখ্যা আমরা উৎসর্গ করেছিলাম জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামানকে, ষষ্ঠ জন্মদিন-সংখ্যা কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হককে, সপ্তম জন্মদিন-সংখ্যা কথাশিল্পী সেলিনা হোসেনকে…। আর এ  ধারায় নবম জন্মদিন-সংখ্যা আমরা উৎসর্গ করলাম প্রচ্ছদে অধিষ্ঠিত কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা ও কথাশিল্পী সৈয়দ মনজুরুল ইসলামকে। উভয়ে আলাদাভাবে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন, মুখোমুখি বৈঠকে বসেছেন শব্দঘর-এর আমন্ত্রণে; সাহিত্যের নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন। দোহার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আহমাদ মোস্তফা কামাল ও মোহিত কামাল। এ সংখ্যায় তা পত্রস্থ করা হলো।

উভয়ের সাহিত্যের অভ্র ও বিভা উন্মোচনে অংশগ্রহণ করেছেন রনজু রাইম, সৈকত হাবিব। সাহিত্য বিশ্লেষণ করেছেন মলয়চন্দন মুখোপাধ্যায়, কবি নাসির আহমেদ, তপন বাগচী, মনি হায়দার, নাজিব তারেক, হামিদ কায়সার ও হামীম কামরুল হক। সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

পাঠক আরও পড়ার সুযোগ পাবেন কবি নূরুল হুদার একটি নতুন দীর্ঘকবিতা এবং সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের চারটি ভিন্ন ধাঁচের গল্প।

এ সংখ্যা থেকে শুরু হলো ভাষা-গবেষণা বিষয়ক ধারাবাহিক―মানবর্র্দ্ধন পালের ‘শব্দবিন্দু আনন্দসিন্ধু’র সূচনাপর্ব। থাকছে ইমদাদুল হক মিলনের ‘ধারাবাহিক জীবনকথা’, মঈনুস সুলতানের ভ্রমণ এবং লিটলম্যাগ বুনন নিয়ে ফারুক সুমনের বিশ্লেষণ।

আর্থিকভাবে এবং নিজেদের প্রজ্ঞা দিয়ে যাঁরা পাশে আছেন তাঁদের প্রতি রইল অজস্র ভালোবাসা।

কবি জীবনানন্দ দাশের কাব্যের জ্যোতিপ্রভার আলোকে রচিত আমাদের প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ কথাশিল্পী মাসউদ আহমাদের প্রায় এক লক্ষ বত্রিশ হাজার শব্দের ধারাবাহিক উপন্যাস ‘কাঞ্চন ফুলের কবি’ প্রকাশের উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাভাষায় সাহিত্যের ঐতিহ্যবাহী পত্রিকা দেশ। তাঁর এই সাফল্যে শব্দঘর গর্বিত। এখানে উল্লেখ্য যে তাঁর প্রথম উপন্যাসটি প্রকাশিত হয়েছিল শব্দঘর নভেম্বর ২০১৫ সংখ্যায়। আমাদের সাহিত্য-আড্ডায় মুখোমুখি বৈঠকে তাঁকে ব্যক্তিগতভাবে এবং শব্দঘর-এর পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানান উপস্থিত কবি ও কথাসাহিত্যিকগণ।

আলপ্তগীন তুষার এঁকেছেন কবি মুহম্মদ নূরুল হুদার প্রাণবন্ত প্রতিকৃতি। আর তাজুল ইমামের তুলিতে প্রাণ পেয়েছে সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের প্রতিকৃতি। তাঁদের শিল্পকর্ম অবলম্বনে এ সংখ্যার প্রচ্ছদ সাজিয়েছেন শিল্পী ধ্রুব এষ। সবার প্রতি আমাদের অশেষ ভালোবাসা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.