বিষাদের ঈদ, আনন্দের ঈদসংখ্যা

করোনার এ দুর্যোগ মুহূর্তেও আমরা ঈদসংখ্যা প্রকাশ করেছি।

সবাই জানি, দেখছি, পাল্টে গেছে আমাদের চেনা-জানা পৃথিবী, পাল্টে গেছে সাহিত্যাঙ্গন, বইপাড়াও। আর বইমেলাও এবার করোনার অভিঘাতে বিপর্যস্ত হয়েছে। তবু চলছে সাহিত্যচর্চা। তবু জেগে আছি সাহিত্যময় জীবনে।

উজ্জ্বল রচনা, সাক্ষাৎকারপর্বে এবার শব্দঘর ঈদসংখ্যা ২০২১ আলোকিত করেছেন সবার প্রিয় অঙ্কনশিল্পী রফিকুন নবী। রনবী নামে খ্যাত, বিশ্বজুড়ে  খ্যাতিমান এ চিত্রশিল্পী কেবল রঙ-তুলি নিয়ে খেলা করেন না, কলমের নান্দনিক ব্যবহারের মধ্য দিয়েও তিনি তুলে আনতে সক্ষম নানা ধরনের রস-রচনা, প্রবন্ধ-নিবন্ধ, গল্পও। আর তিনি এ সংখ্যায় উপহার দিয়েছেন করোনা নিয়ে একডালি নতুন কার্টুন। তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।

চিঠিসাহিত্যকে রবীন্দ্রনাথ প্রাণ দিয়ে গেছেন। বিখ্যাত মনীষীদের চিঠিপত্র নানা অভিজ্ঞতা, ইতিহাস-ঐতিহ্য প্রকাশের বাহন। সে অভিজ্ঞতার বয়ান নিয়ে আবুল আহসান চৌধুরী উপস্থাপন করেছেন অন্নদাশঙ্কর রায়ের পত্র-মানস, তাঁর একঝুড়ি অপ্রকাশিত পত্র।

তিনটি উপন্যাস এবং দুটি বিজ্ঞান কল্পকাহিনি উপন্যাস থাকছে এ-সংখ্যায়। হরিশংকর জলদাস, আকিমুন রহমান ও মিলটন রহমান উপন্যাস-বিভাগকে আলোকিত করেছেন।

আর বিশ্বের খ্যাতিমান বিজ্ঞান কল্পকাহিনির লেখক দীপেন ভট্টাচার্য উপস্থিত হয়েছেন অনন্য এক সায়েন্স ফিকশন উপন্যাস নিয়ে। সঙ্গে থাকছে আরেক শক্তিমান সায়েন্স ফিকশন লেখক দিপু মাহমুদের বিজ্ঞান কল্পকাহিনি উপন্যাস।

প্রতিবারের মতো শব্দঘর ২০২১ ঈদসংখ্যায় বিশেষ রচনা হিসেবে থাকছে পর পর তিন বছর কথাসাহিত্যে বাংলা একাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত তিন কথাশিল্পীর গল্পবিশ্বের ওপর আলোকপাত। এ ধারাবাহিকতায় এবার আছেন ওয়াসি আহমেদ (২০১৯), মোহিত কামাল (২০১৮) ও ইমতিয়ার শামীম (২০২০)। তাঁদের নিয়ে লিখেছেন যথাক্রমে তপোধীর ভট্টাচার্য, মোজাম্মেল হক নিয়োগী ও সাগুফতা শারমীন তানিয়া।

গল্প-কবিতা-ছড়া বিভাগেও থাকছে একঝাঁক বয়োজ্যেষ্ঠ ও তারুণ্যদীপ্ত সাহিত্যিকের জমজমাট উপস্থিতি। দেশসেরা গল্পকার, সেরা কবির সেরা রচনায় ঋদ্ধ হয়েছে সংখ্যাটি।

বিশ্বসাহিত্য বিভাগে যথারীতি থাকছে মোহীত উল আলমের অনবদ্য রচনা―‘বিপুলা এ পৃথিবীর কতটুকু জানি’। বিশ্বাস রাখছি এ রচনা পাঠ করে প্রত্যেক সাহিত্যপ্রেমী নিজের সাহিত্যসত্তাকে আলোড়িত-আলোকিত করার সুযোগ পাবেন।

ভ্রমণসাহিত্য নিয়ে হাজির হয়েছেন যথারীতি বিশ্বজুড়ে খ্যাতিমান লেখক  মঈনুস সুলতান ও শাহাব আহমেদ। আর ভ্রমণসাহিত্যে নবীন হলেও মিলু শামস তুলে এনেছেন ‘পিরামিড : অমরত্বের আবাস’ নামক কৌতূহলোদ্দীপক রচনা।

অদৃশ্য শত্রু হিংস্র প্রজাতির করোনার আক্রমণে একের পর এক  গুণীজন, প্রিয়জন উধাও হয়ে যাচ্ছেন এ নশ্বর পৃথিবী থেকে। এরমধ্যে চলে গেছেন বাংলা একাডেমির সভাপতি শামসুজ্জামান খান ও বাংলা সাহিত্যের এ সময়ের শক্তিমান কবি শঙ্খ ঘোষ। ঈদসংখ্যা ২০২১ উৎসর্গ করলাম এই দুই গুণীজনের স্মৃতির উদ্দেশে।

যথারীতি এবারের প্রচ্ছদও উপহার দিয়েছেন এ সময়ের কিংবদন্তি শিল্পী ধ্রুব এষ। তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। আর শব্দঘর-পরিবারের পক্ষ থেকে এর লেখক-পাঠক, শিল্পী, বিজ্ঞাপনদাতা-এজেন্ট এবং শুভানুধ্যায়ীদের জানাই পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের আন্তরিক শুভকামনা।

 জুলাই-আগস্ট সংখ্যা হবে বইসংখ্যা। অগ্রিম ঘোষণা রইল আগ্রহী লেখক-পাঠকদের জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares