সাহিত্য সংস্কৃতি মাসিক পত্রিকা
শুদ্ধ শব্দের নান্দনিক গৃহ


প্রকাশক : মাহফুজা আখতার
সম্পাদক : মোহিত কামাল
সাহিত্য সংস্কৃতি মাসিক পত্রিকা শুদ্ধ শব্দের নান্দনিক গৃহ

আমি বাংলাভাষায় নিজস্ব গল্প এবং উপন্যাসের অবয়ব খুঁজে পেতে চাই – জাকির তালুকদার

September 19th, 2016 10:12 pm
আমি বাংলাভাষায় নিজস্ব গল্প এবং উপন্যাসের অবয়ব খুঁজে পেতে চাই  – জাকির তালুকদার

প্রচ্ছদ রচনা

আলাপন

 

[জাকির তালুকদার কথাশিল্পে বাংলা একাডেমি পুরস্কারে (২০১৪) সম্মানিত। তিনি কাগজ সাহিত্য পুরস্কার (২০০১), মহারানী ভবানী সাহিত্য পুরস্কার (২০০৮), চিহ্নসম্মাননা, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (২০১০) ও আখতারুজ্জামান ইলিয়াস কথাসাহিত্য পুরস্কার (২০১৩) সহ আরও পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। প্রবন্ধ, মুক্তগদ্য ছাড়াও তাঁর রয়েছে ৯টি উপন্যাস ও ১২টি গল্পগ্রন্থ। স্বকীয় মানস-মাটিতে দাঁড়িয়ে বাংলা কথাসাহিত্যের দিগন্তরেখার শৈল্পিক প্রসারণের অঙ্গীকারে দৃপ্ত তিনি।]

 

আমি বাংলাভাষায় নিজস্ব গল্প এবং উপন্যাসের অবয়ব খুঁজে পেতে চাই

– জাকির তালুকদার

 

শব্দঘর :  একুশ শতকে পৌঁছে বিশ শতকের বাঙলাসাহিত্যের তুলনায় আমরা কতদূর এগোতে পেরেছি বলে আপনি মনে করেন?

জাকির তালুকদার : এই প্রশ্নের পূর্ণাঙ্গ উত্তর পাওয়া যাবে একুশ শতকের শেষে। আমরা এখনও পর্যন্ত বিশ শতকের ধারাবাহিকতাই বহন করছি। আর সাহিত্যে যাকে উত্তরণ বলা হয়, যাকে আপনি ‘এগোনো’ বলছেন, তা কোনো নির্দিষ্ট সময় বা দিন-তারিখের ওপর নির্ভর করে না। বিশ শতকে সমাজ-রাজনীতি-প্রযুক্তি যে জায়গাতে ছিল, এখন সেখানে নেই। কাজেই সাহিত্যে আঙ্গিক এবং অধিগ্রহণ পাল্টাবে। পাল্টাচ্ছেও। এই দেশে এখন এমন সব বিষয় নিয়ে কথাসাহিত্য চর্চিত হচ্ছে, যা আগে হয়নি। তবে নতুনত্ব মানেই সবসময় অগ্রগামী না-ও হতে পারে। আমি ‘এগোনো’ শব্দটি বাদ দিয়ে বলতে চাই, পরিবর্তিত হচ্ছে। জীবনের ধর্মই পরিবর্তন। কাজেই একুশ শতকের বাংলা কথাসাহিত্যকে আপনি জীবন্ত বলতে পারেন।

শব্দঘর : বিশ্বসাহিত্যের অঙ্গনে বাঙলাসাহিত্য কতখানি গ্রহণীয় হয়ে উঠেছে বলে মনে করেন? এ প্রসঙ্গে আপনার পরামর্শ :

জাকির তালুকদার : আমি বিশ্বসাহিত্য নামের কোনো অখণ্ড কিছুতে বিশ্বাস করি না। কারণ বিশ্বসাহিত্য বলে কিছু নেই। হয় না। সব সাহিত্যই আঞ্চলিক। নিজ নিজ দেশ-মাটি নির্ভর। কলোনিয়াল যুগে ইউরোপের সাহিত্য (মূলত ইংরেজি সাহিত্য)-কে বিশ্বসাহিত্য বলে চালিয়ে দেওয়া হতো। এখনও আমরা সেই চিন্তাতেই আচ্ছন্ন। লাতিন আমেরিকার সাহিত্য কি ইউরোপের সাহিত্যের মতো? আফ্রিকার সাহিত্য কি ইউরোপের সাহিত্যের মতো? বাংলাসাহিত্য বরং বহুদিন ইউরোপের অনুকরণ করেছে। এখন এই উপলব্ধিটা অন্তত এসেছে যে, ইউরোপের সাহিত্য মানেই বিশ্বসাহিত্য নয়। এখনও মুখের ভাষায় যে সাহিত্য সৃষ্টি হয় যেসব জাতি-গোষ্ঠীর মধ্যে, সেগুলোও বিশ্বসাহিত্যের অংশ।

আমরা উৎসুক হতে পারি, যা নিয়ে তা হচ্ছে, বাংলাসাহিত্য অন্য ভাষাভাষীদের কাছে আদৃত হচ্ছে কি না? তো এখন পর্যন্ত বাংলাসাহিত্য অনূদিত হয়ে কয়টি ভাষার মানুষের কাছে পৌঁছেছে? প্রায় শূন্য। আপনি বলতে পারেন, আমাদের উচিত হবে ইংরেজি বা অন্য ভাষায় বাংলাভাষার শ্রেষ্ঠ রচনাগুলি অনুবাদ করে তাদের কাছে পৌঁছে দেওয়া। এতে কিছুটা কাজ হতে পারে। তবে আমি মনে করি, যদি কারও মনে হয় যে বাংলাভাষায় ভালো সাহিত্যের কাজ হয়েছে বা হচ্ছে, তাহলে একসময় তারা নিজেরাই এগিয়ে আসবে নিজেদের ভাষায় অনুবাদ করে নেবার জন্য।

শব্দঘর : তরুণ কথাশিল্পীদের নিয়ে আপনি কতটুকু আশাবাদী- উত্তরণের পথে করণীয় কী?

জাকির তালুকদার : আমাদের পরের প্রজন্মের তরুণদের মধ্যে তেমন কেউ নিজস্বতা-চিহ্নিত হয়ে দাঁড়াতে পারেনি এখনও। অন্তত আমার দৃষ্টিতে। তবে তাদের মধ্যে নতুন নতুন বিষয় নিয়ে লেখার প্রবণতা কাজ করে। এটা শুভ লক্ষণ।

নতুনদের জন্য এখন সবচাইতে বিপদের বিষয় হচ্ছে, ছাপার এন্তার সুযোগ। পত্রিকার বিস্ফোরণ ঘটেছে। সেগুলোর পাতা ভরাতে হয়। তাই যেন-তেন লেখাও অক্লেশে ছাপা হয়ে যাচ্ছে। তরুণরা ভালো সম্পাদকের দ্বারা ফিল্টারড হচ্ছেন না। কাজেই সন্তুষ্টি এসে যাচ্ছে অনেকের। ফলে অনিবার্য স্থবিরতা এবং একঘেয়েমি।

শব্দঘর : আমাদের প্রবীণ কথাসাহিত্যিকদের প্রতি আপনার মূল্যায়ন কী? আমাদের উত্তরণের বিষয়ে আত্মসমালোচনা কীভাবে করবেন?

জাকির তালুকদার : আমাদের প্রবীণ কথাসাহিত্যিকেরা তাঁদের সাহিত্যিক দায়িত্ব মোটামুটি ভালোভাবেই পালন করেছেন বলে আমি মনে করি। তাঁরাই আমাদের পথ প্রদর্শক এবং শিক্ষক।

আত্মসমালোচনার জায়গা অনেক। তা আলাদা প্রবন্ধের দাবি করে।

শব্দঘর : সাহিত্য বিষয়ে আপনার নিজস্ব পরিচিন্তা কী?

জাকির তালুকদার : আমি বাংলাভাষায় নিজস্ব গল্প এবং উপন্যাসের অবয়ব খুঁজে পেতে চাই। আর লেখার ব্যাপারে আমি চাই এমন লেখা লিখতে যা একই সাথে হবে ধ্রুপদি এবং পাঠকপ্রিয়।

শব্দঘর : আপনার প্রিয় উপন্যাস এবং ছোটগল্প বিষয়ে বলুন :

জাকির তালুকদার : বাংলা এবং বিভিন্ন ভাষায় মিলিয়ে আমার প্রিয় উপন্যাসের সংখ্যা শতাধিক। কাজেই একটা-দুইটার নাম বলা কোনো কাজের কথা নয়। আর প্রিয় ছোটগল্প তো শত শত।

শব্দঘর : আপনার পাঠকদের প্রতি কিছু বলুন :

জাকির তালুকদার : সাহিত্যের সঙ্গে থাকুন। এতে সাহিত্যের যেমন উপকার, তেমনই আপনার নিজেরও উপকার।

Print