Shabdaghar

অপূর্ব শর্মা ও তাঁর মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক গবেষণা

মিহিরকান্তি চৌধুরী নবপ্রজন্মের সাহসী দেশপ্রেমিক অনুসন্ধানী সাংবাদিক অপূর্ব শর্মা। প্রায় দুই দশক ধরে নির্ভীক সাংবাদিকতার…

বাংলার প্রত্যন্ত দ্বীপে পাকিস্তানি বর্বরতা : ভোলা জেলা ১৯৭১

রেহানা পারভীন বাংলাদেশের একমাত্র দ্বীপজেলা ভোলা। ভৌগোলিকভাবে বিচ্ছিন্ন হওয়ায় জেলার ইতিহাস-ঐতিহ্যেও এর প্রভাব লক্ষ করা…

মুক্তিযুদ্ধের চেতনার উজ্জীবনে গণহত্যা জাদুঘর

ড. চৌধুরী শহীদ কাদের মুক্তিসংগ্রামের সুবর্ণজয়ন্তীর দ্বারপ্রান্তে আমরা। অথচ মুক্তিযুদ্ধের এত বছর পরে এসে আমাদের…

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের উপন্যাস

বাংলাদেশের মানুষের অজেয় বীরত্ব ও বিশাল আত্মত্যাগের ফলে ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর নয় মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশের রাষ্ট্রিক স্বাধীনতা অর্জিত হয়। মূলত বাঙালি জাতীয়তাবাদের ভিত্তিতে সৃষ্ট স্বাধীন বাংলাদেশের জন্মের ইতিহাস সুদীর্ঘ সূত্রে গ্রথিত। পাকিস্তান প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর এদেশের মানুষের আশা ছিল দেশের সব অংশের আশা-আকাক্সক্ষা পূর্ণ হবে। কিন্তু কিছুদিন পরেই দেখা গেল, বিশেষ এক শ্রেণির স্বার্থে বিশেষ এলাকার প্রয়োজন অনুসারে এবং বিশেষ এক লক্ষ্যকে সামনে রেখে পাকিস্তানের রাজনীতি পরিচালিত হচ্ছে।

বাংলা সাহিত্যের মহান উপজীব্য বিষয় একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ

ইতিহাসের বাঁকে বাঁকে পৃথিবীর জাতিসমূহের জনসংস্কৃতি বিকাশমান থাকে। জাতীয় সংস্কৃতির প্রধান বাহক হয়ে ওঠে তাঁদের নিজ-নিজ ভাষা। বাঙালি জাতির আত্মবিকাশের ধারায়, ১৯৭১ সালের রক্তক্ষয়ী গৌরবোজ্জ্বল মুক্তিযুদ্ধের ভিতর দিয়ে স্বাধীনতা অর্জনের ঐতিহাসিক ঘটনাটিও বাংলাসাহিত্যের এক মহান উপজীব্য বিষয়- যা মূলত বাংলা ও বাঙালি বন্দনার কবি আবদুল হাকিম, ভারতচন্দ্র রায়গুণাকর (‘আমার সন্তান যেন থাকে দুধে ভাতে’) থেকে ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্ত হয়ে মুকুন্দ দাস, রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়, মধুসূদন দত্ত, বঙ্কিমচন্দ্র, রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, জীবনানন্দ দাশ, সুকান্ত ভট্টাচার্যের উত্তরাধিকার বহন করে প্রবাহিত হচ্ছে।

মুক্তিযুদ্ধের কবিতা নিয়ে কিছুকথা

অনুপম হাসান বাংলাদেশের সাহিত্যের একটা বড় অংশজুড়ে আছে মুক্তিযুদ্ধ প্রসঙ্গ, এ কথা অনস্বীকার্য। বাংলাদেশের গল্প…

Follow by Email
Facebook
Twitter
Pinterest
Instagram